আরিফ আজম : শেষ বাঁশি বাজার পর গ্যালারির সমর্থকদের উচ্ছ্বাস। সেমিফাইনাল ম্যাচে স্বাগতিক দল ফেনীর খেলোয়াড়দের উৎসাহ দিতে বলে দর্শক সমাগমও ছিল বেশি। দর্শকদের আগ্রহ অনুযায়ী প্রতিপক্ষ বান্দরবান জেলা দলের সাথে জমজমাট লড়াইও হয়েছে বেশ। প্রায় ১৫ বছর পর চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনালে পৌছেছে ফেনী জেলা দল। গতকাল বুধবার বিকালে ভাষা শহীদ সালাম স্টেডিয়ামে ৬ষ্ঠ বারের মতো বিভাগীয় আসর থেকে ১ গোলে হেরে বিদায় নেয় বান্দরবান জেলা দল।

প্রথমার্ধেই পায়ে আঘাত পেয়ে ইঞ্জুরির শিকার হয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন টিমের মূল আকর্ষণ আবদুল বাতেন চৌধুরী কমল। খেলা শুরুর ১০ মিনিটে ১৩নং জার্সি পরিহিত আবির হোসেনের গোলে এগিয়ে যায় ফেনী। ফেনী জেলা দলের মিডফিল্ডার বিপুল আর মামুন বল আটকে দেয়ায় বেশি আক্রমণও পায়নি প্রতিপক্ষরা। বেশ কয়েকটি সুযোগ পেয়েও গোলবারের সামনে নিয়ে কাজে লাগাতে পারেনি ফেনী।

খেলায় ম্যান অব দ্য ম্যাচ পুরস্কার লাভ করেন ফেনীর আবির হোসেন। পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম-সম্পাদক শুসেন চন্দ্র শীল। এসময় জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন বাহার, সহ-সভাপতি গোলাম রব্বানী, কোষাধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন ডালিম, আবাহনী ক্রীড়া চক্রের সভাপতি ফাজিলপুর ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুল হক রিপন, বান্দরবান জেলা ক্রীড়া সংস্থার কোচ অসীম বড়–য়া, ফেনী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য বাহার উদ্দিন বাহার, আবদুল মোতালেব হুমায়ুন, মো. আজম চৌধুরী, আবুল হাশেম, নুরুল আফসার কবির শাহজাদা, মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম তুহিন, আশ্রাফুল আনোয়ার শিমুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ফুটবল সংশ্লিষ্টরা জানালেন, ফাইনালে ওঠার আনন্দটিই ভিন্ন। বিভাগীয় কমিশনার টুর্ণামেন্টে ২০০৩ সালে ফেনী জেলা দল কক্সবাজারের মাঠে রানার্সআপ হয়েছিল। এরপর আর কোয়ার্টার ফাইনালের বেশি এগুতে পারেনি। কখনো বিদায় নিতে হয়েছে এর আগেই।

প্রসঙ্গত; টুর্ণামেন্টে স্বাগতিক ফেনী জেলা দল ছাড়াও বিভাগের ১১টি জেলা দল অংশগ্রহণ করে। ফেনী জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় টুর্ণামেন্টের আয়োজন করে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা ৪৫ মিনিটে একই মাঠে আসরের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে নোয়াখালী জেলা দলের মুখোমুখি হবে কুমিল্লা জেলা দল।

antalya escort bursa escort adana escort mersin escort mugla escort samsun escort konya escort