শহর প্রতিনিধি : ফেনী শহরের পুরাতন পুলিশ কোয়ার্টার এলাকার ইভটিজিংসহ নানা অপকর্মের হোতা সেই দুই বখাটে তুহিন ও রাকিব কে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদেরকে আদালতে মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, ফেনী সরকারী কলেজের গণিত বিভাগের বর্ষের ছাত্র মো: রুবেল ৩১ মে দুপুরে নির্বাচনী পরীক্ষা দিয়ে ফেরার সময় ফেনী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছলে বখাটে হাসানের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে হাসান মোবাইল ফোনে তার বন্ধু জামশেদ আলম তুহিন, আবদুল্লাহ আল রাকিবসহ ৮-১০ কে জড়ো করে। পরে তারা রুবেলকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি আঘাত করে রক্তাক্ত করে পালিয়ে যায়। রুবেলের শোর-চিৎকার শুনে দোকানদারা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চট্টগ্রামে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় রুবেলের পিতা আবদুস সাত্তার বাদী হয়ে ৮ জুন ফেনী মডেল থানায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে ৮-১০জনকে অজ্ঞাত আসামী করে মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কামাল হোসেন ৮ জুন রাতে শহীদ মার্কেটের সামনে থেকে ছাগলনাইয়া উপজেলার পাঠাননগর ইউনিয়নের বাদশা মিয়া সওদাগর বাড়ির কাজী মো: জামাল উদ্দিনের ছেলে জামশেদুল আলম তুহিন ও মোটবী ইউনিয়নের লস্করহাটের বড় বাড়ির আবুল হোসেনের ছেলে আবদুল্লাহ আল রাকিবকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

ফেনী মডেল থানার ওসি মো: রাশেদ খান চৌধুরী জানান, পুরাতন পুলিশ কোয়ার্টার এলাকার বিভিন্ন সড়কে তুহিন, হাসান ও রাকিবসহ একটি সংর্ঘবদ্ধ চক্র স্কুল-কলেজগামী ছাত্রীদেরকে উক্ত্যক্ত করে আসছে। তাদের নামে থানায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে।