সময় ডেস্ক : চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যান মালা বেগম (২০)। মালার লাশ ফেলে পালিয়ে যান তার মা ও স্বামী। এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় পটুয়াখালীর বাউফল থানায় মামলা হয়েছে। মামলার বাদী হয়েছেন মালার ছোট বোন লিপি বেগম (১৮)। মামলায় মালার মা নার্গিস বেগম (৩৫) ও মালার স্বামী মামুন ঢালীকে (৩৫) আসামি করা হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মালার মা নার্গিস বেগমের সঙ্গে মালার স্বামী মামুন ঢালীর অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ রয়েছে। এর জের ধরে ২ মে মালা বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩ মে মালার মৃত্যু হয়। পরে মালার লাশ ফেলে পালিয়ে যান তার মা ও স্বামী। খবর পেয়ে মালার চাচা মো. হেলাল হাওলাদার হাসপাতালে যান। লাশের ময়নাতদন্ত করানোর পর তিনি পারিবারিকভাবে লাশ দাফন করেন।

হেলাল হাওলাদার বলেন, তারা (নার্গিস বেগম ও মামুন ঢালী) অপরাধী বলেই পালিয়ে গেছেন। তিনি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

বাউফল থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় দুই আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।