স্টাফ রিপোর্টার :
ফেনী শহরের শহীদ শহীদুল্লা কায়সার সড়কে ভাইটাল রিসার্চ ইউনিট-২ এর ভূয়া রিপোর্ট নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি রোগীর স্বজনরা ফেনীর সিভিল সার্জন ডা. মো: নিয়াতুজ্জামানের নিকট অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিভিল সার্জন একটি টিম নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পেয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, শিশু সাজেদুল ইসলাম আদিব। বয়স ২ বছর ১ মাস। জ্বর হওয়ায় শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দেখানোর জন্য ফেনী নিয়ে আসে। চিকিৎসক ব্লাড পরীক্ষা করতে বলেন। চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী রোগীর স্বজনরা ভাইটাল রিসার্চ ইউনিট-২ তে ব্লাড পরীক্ষা করেন। রিপোর্টটি চিকিৎসককে দেখালে তিনি রোগী নিয়ে যেতে বলেন। রোগী দেখার পর আবার পরীক্ষা করতে বলেন। দ্বিতীয়বার ৩ লাখ ৯৬ হাজার ব্লাড প্লাটিলেট পাওয়া যায়। কিন্তু আগের পরীক্ষায় ভাইটাল রিসার্চে মাত্র ৩০ হাজার প্লাটিনিয়াম পাওয়া গেছে। দুইটি পরীক্ষায় এমন ব্যবধানে রোগীর স্বজনরাও আতংকগ্রস্থ হয়ে উঠে। আদিব ছাগলনাইয়া উপজেলার ঘোপাল ইউনিয়নের শহীদুল ইসলামের ছেলে। এ ঘটনায় রোগীর স্বজনদের মাঝে আতংক, উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা ছড়িয়ে পড়ে। অথচ রোগীর মাঝে ডেঙ্গুর কোন আলামত পাওয়া যায়নি।
রোগীর পিতা শহীদুল ইসলাম এমন ভূয়া রিপোর্টের যথাযথ ব্যবস্থাপূর্বক বিচার দাবী করেন। এরকম আরো যেসকল ভূয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে সেগুলো পরিদর্শন পূর্বক বন্ধ করে দেয়ার দাবী জানান।
জানতে চাইলে সিভিল সার্জন ডা. মো: নিয়াতুজ্জামান ফেনীর সময় কে জানান, দুই দিনের ব্যবধানে এমন পার্থক্য কিভাবে হয় বিষয়টি তার জানা নেই। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক তিনি একটি টিম নিয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

antalya escort bursa escort adana escort mersin escort mugla escort samsun escort konya escort