অথার নাম

 

কুমার সাঙ্গাকারার কাছে তিনি শ্রীলঙ্কার ‘সম্পদ’। যাকে আবার ‘শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে’ হারাতে হয়েছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের (এসএলসি) চাকরি! ৮ বছর আগে যিনি শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের হয়ে কাজ করতেন, সেই চন্ডিকা হাথুরুসিংহে কোচিং ক্যারিয়ারে কতটা আলো ছড়িয়ে চলেছেন, সেটা এখন শুধু শ্রীলঙ্কা না, গোটা ক্রিকেট বিশ্বেরই জানা। আর সে কারণেই ‘সম্পদ’কে দেশে ফিরিয়ে আনার জোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে খবর ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘ক্রিকেটএইজ’-এর।

আরেক সংবাদমাধ্যম ‘ক্রিকইনফো’র খবর, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন হাথুরুসিংহে। চুক্তির মেয়াদ ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত থাকলেও ‘হঠাৎ’ পদত্যাগ করার সিদ্ধান্তের সঙ্গে খালি থাকা শ্রীলঙ্কার প্রধান কোচের চেয়ারের দিকে নজর দিলে দুয়ে দুয়ে চার মেলানো যেতেই পারে!

গত জুনে গ্রাহাম ফোর্ড দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ায় শ্রীলঙ্কার প্রধান কোচের পদটা এখন ফাঁকা। আলোচনায় ডিন জোন্স ও জেসন গিলেস্পি থাকলেও এসএলসি’র প্রথম পছন্দ হাথুরুসিংহে। ‘ক্রিকেটএইজ’কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের এক কর্তা, ‘চন্ডিকার সঙ্গে আলোচনা চলছে। আরও কয়েকজন আছেন, যাদের মধ্যে রয়েছেন ডিন ও জেসন গিলেস্পি। যদিও চন্ডিকাই প্রথম পছন্দ।’

‘ক্রিকবাজ’ আবার ছেপেছে, শ্রীলঙ্কার কোচ হতেই বাংলাদেশের দায়িত্ব ছাড়তে যাচ্ছেন হাথুরুসিংহে। যদিও এবারই যে প্রথমবার পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন তিনি বিসিবির কাছে, বিষয়টা এমন নয়। গত বছরও দায়িত্ব ছাড়তে চেয়েছিলেন শ্রীলঙ্কান কোচ, যদিও পরিস্থিতি সামলে নিয়েছিল বিসিবি। তবে এবারের বিষয়টি জটিলই মনে হচ্ছে। কারণ শোনা যাচ্ছে, হাথুরুসিংহের ‘কাছের বন্ধু’ সাঙ্গাকারাকে দিয়ে নাকি অনুরোধ করা হয়েছে যাতে তিনি যোগ দেন শ্রীলঙ্কা দলে।

সাঙ্গাকারার সঙ্গে হাথুরুসিংহের বন্ধুত্বটা অনেক দিনের। বছর দশেক আগে শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের দায়িত্ব যখন নিয়েছিলেন তিনি, তখন শ্রীলঙ্কার মূল দলের অধিনায়ক ছিলেন সাঙ্গাকারা। ওই সময় দ্বীপ দেশটির প্রধান কোচের ভূমিকায় থাকা ট্রেভর বেইলিসের সহকারী হিসেবেও কাজ করেছিলেন বাংলাদেশের এই কোচ। যদিও শৃঙ্খলাজনিত কারণে বহিষ্কার করা হয়েছিল তাকে। তখন সাঙ্গাকারার অনুরোধে তাকে ফিরিয়ে আনা হলেও বোর্ড পুনরায় নিয়োগ দেয়নি হাথুরুসিংহেকে। এখন আবার সেই সাঙ্গাকারার মাধ্যমেই তাকে শ্রীলঙ্কার প্রধান কোচের চেয়ারে বসাতে চাইছে এসএলসি।

বেতন সংক্রান্ত ঝামেলার কারণেই নাকি আটকে ছিল হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কার কোচ হওয়ার পথ। তবে এখন নাকি বাংলাদেশে যে বেতন পাচ্ছেন তিনি, সেটাই দিতে রাজি হয়েছে এসএলসি। যাতে শ্রীলঙ্কার শীর্ষ খেলোয়াড়রা বছরে যা আয় করেন, তার চেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাবেন হাথুরুসিংহে। ‘ক্রিকবাজ’-এর খবর, সবকিছু ঠিক থাকলে ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতেই নতুন কোচের নাম ঘোষণা করতে চায় শ্রীলঙ্কা, যাতে জানুয়ারির শুরু থেকে কাজ করতে পারেন তিনি। তবে হাথুরুসিংহেকে এই সময়ের মধ্যে তারা পাবে কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। কারণ গত বছরই ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত বিসিবির সঙ্গে নতুন চুক্তি করেছেন শ্রীলঙ্কান কোচ।

আরেকটি বিষয় হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কা কোচ হওয়ার পালে হাওয়া লাগাচ্ছে। বাংলাদেশের প্রধান কোচের সাবেক সতীর্থ ও বন্ধু থিলান সামারাবিরা এসএলসিতে যোগ দিয়েছেন ব্যাটিং কোচ হিসেবে, যিনি বাংলাদেশেও সামলেছেন একই দায়িত্ব। সামারাবিরার শ্রীলঙ্কা দলে যোগ দেওয়ার সঙ্গে হাথুরুসিংহের পদত্যাগপত্র জমা দেওয়া- দুটো দৃশ্য একসঙ্গে মেলালে অন্যরকম ছবিই ফুটে উঠছে। যেটা বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য খুব একটা সুখকর নয়! ক্রিকবাজ, ক্রিকট্র্যাকার