নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজুবলী ইউনিয়নের এক গ্রামে স্বামী-সন্তানদের বেঁধে নারীকে (৪০) গণধর্ষণের ঘটনায় আরও দুই আসামি এজাহারভুক্ত প্রধান আসামি মো. সোহেল ও তদন্তে ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততায় গ্রেফতার হওয়া জসিম উদ্দিন ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

গতকাল বুধবার বিকেলে নোয়াখালীর ২ নম্বর আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম নবনীতা গুহ আসামিদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। দুই আসামি মো. সোহেল ও জসিম উদ্দিন রিমান্ডে আছেন। এখনো ধরা পড়েনি এ মামলার তিন আসামি।

মো. সোহেল ও জসিম উদ্দিনের ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক জাকির হোসেন। সন্ধ্যায় মুঠোফোনে তিনি বলেন, পাঁচ দিনের রিমান্ডের তৃতীয় দিনে সোহেল ও জসিম উদ্দিন আদালতে জবানবন্দি দিতে রাজি হন। পরে বিকেলে তাদের আদালতে হাজির করা হয়। জবাবন্দিতে তারা ওই নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

এর আগে গত সোমবার গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন আবুল (৪০) ও ছালা উদ্দিন (৩৫)। এ নিয়ে এ ঘটনায় চারজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেন।

নারীকে মারধর ও গণধর্ষণের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার এজহারভুক্ত তিন আসামি ২ নম্বর আসামি হানিফ (৩০), ৪ নম্বর আসামি চৌধুরী (২৫) ও ৮ নম্বর আসামি মোশারফ (৩৫) এখনো পুলিশের ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছেন।

এ প্রসঙ্গে ডিবির তদন্ত কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, তাদের গ্রেফতারে চেষ্টা অব্যাহত আছে। শিগগিরই এ বিষয়ে সফলতা পাওয়া যেতে পারে।

antalya escort bursa escort adana escort mersin escort mugla escort samsun escort konya escort