অনলাইন ডেস্ক নিউজ

 


বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন— এমন একটা খবর বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পক্ষ থেকে সে সময় বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করা না হলেও পরে অবশ্য বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া হারুথুসিংহে থাকতে না চাইলে বিসিবি তাকে জোর করবে না বলেও জানান বিসিবি সভাপতি।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে নাজমুল হাসান পাপন জানান, অক্টোবরের প্রথম দিকে হারুথুসিংহে তাকে একটি চিঠি দিয়েছিলেন যেখানে তিনি বাংলাদেশের কোচ হিসেবে থাকতে আর আগ্রহী নন বলে জানান। তবে ওই চিঠিতে হাথুরু কোনো সুনির্দিষ্ট কারণ দেখাননি।

বিসিবি হাথুরুর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করবে কিনা জানতে চাইলে পাপন বলেন, 'গ্রহণ করা না-করার কী আছে। কেউ না চাইলে কি জোর করে রেখে দেবো? আমি তো জোর করার কোনো কারণই দেখি না। ওর নিজ থেকে ভালো লাগতে হবে। ও টিম নিয়ে এনজয় করতো। খেলা নিয়ে সারাক্ষণ পড়ে থাকতো। প্ল্যান করতো। আমরাও পছন্দ করেছি। এখন তার যদি ভালো না লাগে, তাহলে জোর করার প্রশ্নই ওঠে না।'

দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ খেলতে যাওয়ার আগে হাথুরু পদত্যাগের কোনো ইঙ্গিত দিয়েছিলেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে বোর্ড সভাপতি বলেন, 'যখন সে গেছে, তখন পর্যন্ত এ ধরনের কোনো লক্ষণই ছিল না। সে সম্পূর্ণভাবে আমাদের সঙ্গেই ছিল। এই যে অস্ট্রেলিয়ায় (আসলে দক্ষিণ আফ্রিকা) সিরিজটায় গেল। সবকিছুই ঠিকঠাক। কিন্তু সেখানে (দক্ষিণ আফ্রিকা) গিয়ে তার মত পরিবর্তন হয়ে গেল। ওখানে যাওয়ার পর (নতুন দায়িত্বের) প্রস্তাব পাওয়াটাও তো অস্বাভাবিক। সো, কিছু একটা হয়তো হয়েছে। যেটায় সে বিরক্ত। আমরা নিশ্চিত নই।'

ঠিক কী কারণে হাথুরু থাকতে চাইছেন না সে বিষয়ে কিছু আঁচ করা যাচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে পাপন বলেন, 'আঁচ করতে পারছি না। তবে মনে হয় যে, ওই সিরিজে গিয়ে সে কোনো একটা কারণে মনে কষ্ট পেয়েছে। কিসের জন্য আমি ঠিক জানি না। হাসিখুশিই তো ছিল। অস্ট্রেলিয়া সফর শেষ হওয়ার পর আমার বাসায় বসেছি। মুশফিক, কোচ, সবাই। বিশ্বকাপ নিয়ে কথা বলেছে, কে খেলবে খেলবে না...। এজন্যই মনে হচ্ছে কিছু একটা বোধহয় ওখানে (দক্ষিণ আফ্রিকা) ঘটেছে। তবে আমি যা যা বলছি, আন্দাজের ওপর বলছি। তবে এবারের সিরিজে ওর একেবারে হঠাৎ করে চুপ হয়ে যাওয়াটা আনকমন। সেকেন্ড টেস্ট থেকে তার যোগাযোগহীন। তার আগে আমিও ফোন করতাম। এবার করিনি।'

হাথুরুকে ফেরানোর কোনো উদ্যোগ নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'আগে জানতে হবে, তার সমস্যাটা কী। কেন সে এই পদত্যাগপত্রটি দিয়েছে। যদি দেখি সমাধান আছে, তাহলে তো হলোই। আমি নিশ্চিত এখানে টাকা-পয়সা কোনো ইস্যু নয়। এখন ম্যানেজ করা সম্ভব কি-না জানি না। কেউ যদি মন থেকে চিন্তা করে যে থাকবে না, তাহলে কী করব? আগামী ১৫ তারিখের পর তার আসার কথা। এখন এ মাসের ১৫ তারিখ গেলে বোঝা যাবে। তবে এখনও যোগাযোগ করা হচ্ছে। দু'দিন ধরে কোনো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না।'

শেষ পর্যন্ত হাথুরু না থাকলে সেক্ষেত্রে বিসিবি নতুন কোচ নিয়ে কিছু ভাবছে কিনা জানতে চাইলে পাপন বলেন, 'আগে ওর সঙ্গে কথা বলি। এরপর নতুন কোচের প্রসঙ্গ। আর নতুন কাউকে তো ধুম করে নেওয়া যাবে না। বিদেশি কোচ যতক্ষণ না থাকে, তখন তো স্থানীয় কেউ থাকতে পারে। তবে স্থানীয় কাউকে স্থায়ীভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই।'